গাজীপুরে বিএনপির মানববন্ধনে লাঠিচার্জ, হান্নান শাহের ছেলেসহ আটক ৯

গাজীপুরে জেলা ও মহানগর বিএনপির উদ্যোগে আয়োজিত মানববন্ধনে পুলিশের লাঠিচার্জ ও টিয়ার গ্যাস শেল নিক্ষেপের ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনায় জেলা মহিলা দলের সাবেক সভানেত্রী আনোয়ারা বেগমসহ অন্তত দশজন আহত হয়েছেন। আহতদের বিভিন্ন ক্লিনিকে চিকিৎসা দেয়া হয়েছে।

পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে প্রয়াত বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতা আ স ম হান্নান শাহের ছেলে শাহ রিয়াজুল হান্নানসহ নয়জনকে আটক করেছে। ১০ সেপ্টেম্বর সোমবার বেলা ১১টার দিকে জেলা শহরের বিএনপি কর্যালয়ের সামনে রাজবাড়ী সড়কে এ ঘটনা ঘটে।

গাজীপুর মহানগর বিএনপির যুগ্ম আহবায়ক শিল্পপতি মোঃ সোহরাব উদ্দিন বলেন, ‘বিএনপির কেন্দ্রীয় কর্মসূচির অংশ হিসেবে কার্যালয়ের সামনে বিপুল সংখ্যক নেতা-কর্মী নিয়ে শান্তিপূর্ণভাবে মানববন্ধন করছিলাম। মানববন্ধনের শেষ মুহূর্তে হঠাৎ করে পুলিশ ফাঁকা গুলি করে মানববন্ধনে অংশ নেওয়া নেতা-কর্মীদের অতর্কিত লাঠিপেটা শুরু করে। মুহূর্তেই নেতা-কর্মীরা ছোটাছুটি করতে থাকে। এ সময় নগরবাসী ও পথচারীদের মধ্যে অতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে। পুলিশের লাঠিপেটায় জেলা মহিলা দলের সাবেক সভানেত্রী আনোয়ারা বেগমসহ অন্তত ১০ জন আহত হয়েছে। এ সময় পুলিশ গাজীপুর-৪ (কাপাসিয়া) আসনের এমপি প্রার্থী ও প্রয়াত ব্রিগেঃ আ স ম হান্নান শাহের ছেলে শাহ রিয়াজুল হান্নান ও গাজীপুর সিটি কাউন্সিলর বিএনপি নেতা হান্নান মিয়া হান্নুসহ ১০/১২ নেতা-কর্মীকে ধরে নিয়ে যায়।’

জয়দেবপুর থানার ওসি আমিনুল ইসলাম বলেন, ‘রাস্তায় প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করে সমাবেশ, যানবাহন চলাচলে বিঘœ ঘটানো, পুলিশের ওপর ইটপাটকেল নিক্ষেপ এবং পুলিশের কাজে বাধা প্রদান করলে টিয়ার গ্যাস শেল নিক্ষেপ করে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনা হয়। ঘটনাস্থল থেকে শাহ রিয়াজুল হান্নান ও সিটি কাউন্সিলর হান্নান মিয়া হান্নুসহ নয়জনকে আটক করা হয়েছে। এ ঘটনায় তিন পুলিশ সদস্য আহত হয়েছেন।’

গাজীপুরের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার রাসেল শেখ জানান, ওই ঘটনায় পুলিশ ৯ জনকে আটক করেছে। আটককৃতদের মধ্যে শাহ রিয়াজুল হান্নান ও সিটি কাউন্সিলর হান্নান মিয়া হান্নুসহ বাকিদের ভিডিও ফুটেজ দেখে যাচাই-বাছই করে কোর্টে চালান করা হবে।

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*