আর্ত মানবতার সেবায় ‘সালাম সহেমননেসা ফাউন্ডেশন’।

হাবিব মোস্তফা অনলাইন ডেস্ক : প্রতিবারের মত এবারও ১৬ ডিসেম্বর জাতীয় বিজয় দিবস উপলক্ষে রাজধানীর অদূরে কেরাণীগঞ্জের শহীদনগর(ঘাটারচর) সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় প্রাঙ্গন মুখর হয়ে উঠেছিল সহস্য মানুষের পাদভারে।এদিন অজস্র অসহায় মানুষের মাঝে বিনামূল্যে চিকিৎসা সেবা ও ঔষধ সরবরাহ করা হয়।পাশাপাশি সুবিধাবঞ্চিত ছেলেমেয়ে এবং কৃতি শিক্ষার্থীদের মাঝে বার্ষিক বৃত্তি প্রদান করে সালাম সহেমননেসা ফাউন্ডেশন।

উক্ত কর্মশালার সার্বিক তত্বাবধানে ছিলেন ডা. মো: রিয়াজুল ইসলাম কাজল। ২০০৭ সাল থেকে ফাউন্ডেশনটি আর্থোপেডিক, গাইনি, নাক কান গলা, দন্ত, শিশু ও মেডিসিন বিভাগের বিশেষজ্ঞ টিমের সাহায্যে এলাকার বিশাল জনগোষ্ঠীকে চিকিৎসা সেবা দিয়ে আসছে।

ডায়াবেটিস ও ব্লাড গ্রুপিং এর কাজটিও করা হয় একই সাথে।প্রাইম ব্যাংক আই হসপিটালের তত্বাবধানে দেয়া হচ্ছে চক্ষুসেবা।ফাউন্ডেশনের প্রাণপুরুষ চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালের সহযোগী অধ্যাপক ডা. সালেহ উদ্দিন আহমেদ ও তার সহধর্মীনি একই কলেজের সহযোগী অধ্যাপক ডা. কামরুননেসা রুনা অসহায় মানুষদের চিকিৎসা সেবা দিতে আন্তরিকভাবে কাজ করে যাচ্ছেন।

ডা. সালেহউদ্দিন আহমেদ বলেন, ‘আমি এ অঞ্চলেরই সন্তান।নাড়ীর টানে ছুটে আসি এলাকাবাসীর কাছে।অসহায় লোকদের পাশে দাঁড়াতে চেষ্টা করি।সামাজিক দায়বদ্ধতাই আমার কাজের মূল প্রেরণা।আমরা সকলের অবস্থান থেকে যদি সামর্থ্য অনুযায়ী কাজ করি, তাহলে সমাজ সামনের দিকে এগিয়ে যাবে বলে আমার বিশ্বাস।

দিনব্যাপী অনুষ্ঠিত এই কর্মশালার সমন্ময়ক গবেষক, গীতিকার, সঙ্গীতজ্ঞ শাকির দেওয়ান বলেন-আমি সালাম সহেমননেসা ফাউন্ডেশনকে অন্তরের অন্ত:স্থল থেকে ধন্যবাদ জানাতে চাই, বৈষয়িক কোন লাভের কথা চিন্তা না করে একমাত্র চিত্তের সুখের কথা ভেবেই তারা দীর্ঘদিন ধরে কাজ করে যাচ্ছে।ফাউন্ডেশনের সাথে থাকতে পেরে নিজের মধ্যেও একটি ভাললাগা কাজ করে।আমার প্রত্যাশা দেশের সকল বিত্তবান এভাবেই অসহায় মানুষদের পাশে থাকবে।আমি ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান এবং সংশ্লিষ্ট সকলের জন্য শুভকামনা জানাই।

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*