পুঁজিবাজারে বিদেশিদের লেনদেন বেড়েছে দ্বিগুণ

প্রকাশিত: ৫:৩৫ পূর্বাহ্ণ, ডিসেম্বর ১৬, ২০১৭

পুঁজিবাজারে বিদেশিদের লেনদেন বেড়েছে দ্বিগুণ

প্রিন্ট

একমাস পর পুঁজিবাজারে বিদেশি ও প্রবাসী বিনিয়োগকারীদের শেয়ার কেনা-বেচা বেড়েছে দ্বিগুণ। ফলে অক্টোবর মাসের তুলনায় নভেম্বর মাসে ডিএসইতে লেনদেনও বেড়েছে প্রায় দ্বিগুণ। তবে কমেছে প্রকৃত বিনিয়োগ।post

বাজার সংশ্লিষ্টরা বলছেন, যৌক্তিমূল্যের চেয়ে কম দাম থাকা বহুজাতিক কোম্পানি, ব্যাংক এবং আর্থিক খাতসহ বেশকিছু খাতের শেয়ার কিনছেন বিদেশিরা। অন্যদিকে যৌক্তিমূল্যের চেয়ে বেশি দাম বাড়ায় দ্বিগুণ মুনাফায় শেয়ার বিক্রি করে দিচ্ছেন তারা। ফলে অক্টোবর মাসের চেয়ে নভেম্বর ‍মাসে বিদেশি বিনিয়োগকারীদের লেনদেন বেড়েছে।

দেশের প্রধান পুঁজিবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই)র তথ্য মতে, নভেম্বর মাসে বিদেশি লেনদেন হয়েছে ১ হাজার ২৫৩ কোটি ৪৩ লাখ ২৬ হাজার ৬৯ টাকার। এর আগের মাস অক্টোবরে লেনদেন হয়েছিলো ৬৪২ কোটি ২ হাজার ৭৩২ টাকার। যা আগের মাসের চেয়েছে ৬১১ কোটি ৩৪ লাখ ২৩ হাজার ৩৩৭ টাকা বেশি। তার আগের দুই মাস আগস্ট ও সেপ্টেম্বরেও লেনদেন বেড়েছে তারও আগের মাসের চেয়ে।

লেনদেনের বৃদ্ধির পাশাপাশি বিদায়ী এই মাসে নিট বিনিয়োগ হয়েছে ১৮ কোটি ৯৪ লাখ ৯৯ হাজার ১৫৯ টাকা। এর আগের মাসে নিট বিনিয়োগ হয়েছিলো ১৫১ কোটি ৭২ লাখ ৭৩ হাজার ৪৭৫ টাকার।

নভেম্বর মাসের ১ হাজার ২৫৩ কোটি টাকার লেনদেনের মধ্যে বিদেশিরা নতুন করে শেয়ার কিনেছেন ৬৩৬ কোটি ১৯ লাখ ১২ হাজার ৬১৪ টাকার। তার বিপরীতে বিদেশিরা শেয়ার বিক্রি করেছেন ৬১৭ কোটি ২৪ লাখ ১৩ হাজার ৪৫৫ টাকার। অর্থাৎ এই মাসে ডিএসইতে নিট বিনিয়োগ হয়েছে ১৮ কোটি ৯৪ লাখ ৯৯ হাজার ১৫৯ টাকা।

শেয়ার কেনা-বেচা বাবদ অক্টোবর মাসে বিদেশি লেনদেন হয়েছিলো ৬৪২ কোটি ২ হাজার ৭৩২ টাকার। এর মধ্যে বিদেশিরা শেয়ার বিক্রি করেছেন ৩৯৬ কোটি টাকার।  তার বিপরীতে ২৪৫ কোটি ১৩ লাখ ৬৪ হাজার ৬২৮ টাকার শেয়ার কিনেছিলেন। অর্থাৎ সেই মাসে ডিএসইতে নিট বিনিয়োগ হয়েছিলো ১৫১ কোটি ৭২ লাখ ৭৩ হাজার ৪৭৫ টাকার।

তার আগের মাস সেপ্টেম্বরে বিদেশি ও প্রবাসীদের মোট লেনদেন হয়েছিলো ৯৪৬ কোটি ৫৬ লাখ টাকার। এর মধ্যে ৫৬০ কোটি  ৫১ লাখ টাকার শেয়ার  কিনেছিলো।

তার বিপরীতে ৩৮৬ কোটি ৫ লাখ টাকার শেয়ার বিক্রি করেছিলো।

তারও আগের মাস আগস্টে বিদেশি বিনিয়োগকারীদের মোট লেনদেন হয়েছিলো ৮৩২ কোটি ৯৪ লাখ টাকার। এর মধ্যে ৪৩২ কোটি ২২ লাখ টাকার শেয়ার কিনেছিলো। আর সেই মাসে শেয়ার বিক্রি করেছিলো ৪০০ কোটি টাকার।

বিষয়টি সম্পর্কে জানতে চাইলে চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জের (সিএসই) ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) সাইফুল ইসলাম মজুমদার বাংলানিউজকে বলেন, পুঁজিবাজারে বিদেশি ও প্রবাসী বিনিয়োগকারীদের অংশগ্রহন বাড়াতে ডিএসই ও সিএসই এবং বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি) বেশ কিছু্ উদ্যোগ নিয়েছে। যার প্রভাব পড়তে শুরু করেছে।

তিনি বলেন, বিদেশিদের অংশগ্রহন বাড়লে বাজারের প্রতি দেশি বিনিয়োগক‍ারীদেরও আস্থা বাড়ে। একই সঙ্গে নতুন করে বিনয়োগের জন্য উপযুক্ত কোম্পানি খুঁজছেন বলে মনে করেন তিনি।